শীতকে সম্পূর্ণরূপে উপভোগ করতে ঘুড়ে আসুন সিলেট থেকে..

শীতকে সম্পূর্ণরূপে উপভোগ করতে ঘুড়ে আসুন সিলেট থেকে..

সিলেটে এখন শীত। তারপরও পর্যটকদের ঢল নেমেছে। এ অবস্থা চলবে পুরো শীত মৌসুমজুড়ে। পুরো সিলেট বিভাগ পর্যটন সমৃদ্ধ। বৈচিত্রময় এ বিভাগের আনাচে কানাচে ঘুরে বেড়ানোর মজাই আলাদা।

এ বিভাগের চার জেলা সুনামগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সিলেটে রয়েছে অসংখ্য পর্যটন স্পট। সিলেটের নানা স্থানে ছড়িয়ে আছে নয়ন জুড়ানো মনমুগ্ধকর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও ঐতিহাসিক নিদর্শন।

ঘোরার জায়গা গুলো হলো-

শ্রীমঙ্গল – বাংলাদেশের চা শিল্পের রাজধানী দুটি পাতা একটি কুড়ির শ্রীমঙ্গল৷ কার্পেটের মত সাজানো চা বাগান সবদিকে৷

এখানে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় চা বাগান সহ বাংলাদেশ চা গবেষণা ইন্সটিটিউট ও অনেক গুলো প্রসেসিং প্লান্ট আছে৷ চা পাতা থেকে চা প্যাকেটজাত করা পর্যন্ত পুরোটুকু দেখতে চাইলে ফ্যাক্টরী ঘুরে দেখা যায়৷

জাফলং – জাফলং এর সচ্ছ পানিতে তাকালেই দেখা যাবে পাথর গড়াতে গড়াতে আসছে৷ চা বাগান ,খাসিয়া পুঞ্জি ও খাসিয়া রাজ বাড়ি এবং বল্লা ঘাট এ পাথর তুলার দৃশ্য পিয়াইন নদীর তীরে স্তরে স্তরে বিছানো পাথরের স্তূপ জাফলংকে করেছে আকর্ষণীয়।

মাধবপুর লেক – শ্রীমঙ্গল এর কমলগঞ্জ এ আছে এই লেক৷ সবসময় শতশত পদ্ম আর শাপলা ফুটে থাকে৷ এখানকার মনিপুরি পাড়াতে ঘুরে আসা যায়৷ তাদের শিল্পকলার সাথেও পরিচিত হওয়া যায়৷ চা পাতা দিয়ে তৈরী আলাদা আর মজাদার বিভিন খাবার পাওয়া যায়৷

লাউয়াছেড়া রেইন ফরেস্ট – বাংলাদেশের অন্যতম সংরক্ষিত বন৷ ঘন জঙ্গলের ফাকে প্রচুর বানর এবং পাখি দেখতে পাওয়া যায়৷ বনে বাঘ, অজগর, হরিন দেখতে পাওয়া যায় বলে শোনা যায়৷ টিলার উপরে কিছু রেস্টুরেন্ট আছে৷ এশিয়ার এক মাত্র ক্লোরোফর্ম গাছ এখানেই আছে যার বাকল এর গন্ধ নিলে অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে৷

রাতারগুল – রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্টটি ‘সিলেটের সুন্দরবন’ নামে খ্যাত। কেননা, ম্যানগ্রোভ বনের সাথে বেশ মিল আছে এ বনের। এই বন বছরের ৫-৬ মাস সম্পুর্ণ পানির নিচে থাকে। বাকি ক’মাস পানিবিহীন থাকে।

লালাখাল – স্বচ্চ নীল জল রাশি আর দুধারের অপরুপ সোন্দর্য, দীর্ঘ নৌ পথ ভ্রমনের সাধ যেকোন পর্যটকের কাছে এক দূর্লভ আর্কষণ। তেমনি এক নির্জন মনকাড়া স্থান লালাখাল। বাংলাদেশের সবোর্চ্চ বৃষ্ঠিপাতের স্থান এবং রাতের সৌন্দর্যে ভরপুর এই লালাখাল সিলেট জেলার জৈন্তাপুর উপজেলার সন্নিকটে অবস্থিত। লালাখাল যাবার পথে আপনির দুচোখ সৌন্দর্য দেখতে দেখতে ক্লান্ত হয়ে যাবেন কিন্ত সৌন্দর্য শেষ হবে না।

যাওয়ার পথ

Trippin> Home pickup&Drop এর মাধ্যমে আপনি সকল পরিবহন সুবিধা নিতে পারেন,trippin এর মাধ্যমে আপনি সিলেট এর ️বাস,ট্রেন ,বিমানের টিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন |

ঢাকা থেকে বাস, ট্রেন বা বিমানে করে সিলেটে যাওয়া যায়।✈️| সিলেট আসার জন্য গ্রিন-লাইন, শ্যামলী, হানিফ, টি আর, সোহাগ, এনা পরিবহনসহ আরও বাস পাবেন।

থাকবেন কোথায়ঃ

সিলেটে থাকার মত অনেকগুলো হোটেল আছে, আপনি www.trippin.com.bd এর মাধ্যমে আপনার প্রয়োজন ও সামর্থ অনুযায়ী হোটেলের রুম বুকিং দিতে পারবেন।

এছাড়াও প্রয়োজনে কল করতে পারেন ☎09613 111555

Posted in General.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *